নিজের মোবাইলে নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২৪

বর্তমানে বাংলাদেশে বহুল ব্যাবহৃত মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধাগুলোর মধ্যে নগদ অন্যতম। দূর দূরান্ত থেকে টাকা লেনদেন করার প্রয়োজনে নগদের আবির্ভাব হয়েছে। কেননা, খুব অল্প সময়ে কোন ঝামেলা ছাড়াই খুব সহজে প্রিয়জনের কাছে টাকা আদান-প্রদান করা যায় নগদ একাউন্টের মাধ্যমে। সুতরাং, আমাদের সবারই নগদ একাউন্ট ও ব্যবহারবিধি সম্পর্কে জানা প্রয়োজন। অনেকেই জানেন না আসলে নগদ কী? কীভাবে নগদ একাউন্ট খুলতে হয় এবং কীভাবে নগদ একাউন্টের মাধ্যমে টাকা লেনদেন করতে হয়। এই কারণেই এই আর্টিকেলের মধ্যে নগদ একাউন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত সকল তথ্য আলোচনা করার চেষ্টা করছি। যারা জানেননা কীভাবে নিজের ফোনে নগদ একাউন্ট তৈরি করতে হয়, তাদের জন্য নগদ একাউন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

নগদ একাউন্ট

আমাদের দৈনন্দিন জীবন দূর-দূরান্তে টাকা আদান-প্রদানের পাশাপাশি অনলাইনে পেমেন্ট করার প্রয়োজন হয়। আর, নগদ হল টাকা আদান-প্রদানের বা বিভিন্ন পেমেন্ট করার একটি সেবা প্রতিষ্ঠান ও সিস্টেম। সুতরাং, এই সিস্টেম থেকে আপনি টাকা লেনদেন, বিভিন্ন সেবা, কেনাকাটা এবং বিভিন্ন্ বিল পেমেন্ট করতে পারবেন, যেমন মোবাইল রিচার্জ, ইন্টারনেট বিল পরিশোধ, বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে আবেদন ফি প্রদান সহ বিভিন্ন শপিং সাইটে কেনাকাটা করতে পারবেন।

মজার বিষয় হচ্ছে, নগদ একাউন্ট ব্যবহার করতে আপনাকে কোন ব্যাংক একাউন্ট খুলতে হবে না। এই ক্ষেত্রে শুধু আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র থাকলেই আপনি একটি নগদ একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন। তাছাড়া, আপনার নিজের ফোন থেকেই মোবাইল নম্বর এবং একটি পাসওয়ার্ড দিয়ে একাউন্ট খুলতে পারবেন। এছাড়াও খুশির বিষয় এই যে, নগদ একাউন্ট ব্যবহার করার জন্য আপনাকে কোন প্রকার ফি প্রদান করতে হবে না। খুব সহজেই আপনার মোবাইল থেকে নিজেই নগদ একাউন্ট পরিচালনা করতে পারবেন।

নগদ একাউন্ট সুরক্ষা

অনেকেই মনে করতে পারেন মোবাইলে নগদ একাউন্ট খুললে আপনার টাকার কোন ক্ষতি হবে কি না। এই ক্ষেত্রে, নগদ একাউন্ট ব্যবহার করার সময় আপনার তথ্য এবং টাকা সুরক্ষিত থাকবে। কারণ, নগদ একাউন্ট ব্যবহার করার জন্য আপনার একটি পাসওয়ার্ড থাকবে। আর পাসওয়ার্ডটিই আপনার একাউন্টের সুরক্ষা নিশ্চিত করবে। যখন নগদ একাউন্ট তৈরি করবেন বা পরবর্তীতে আপনি নিজেই এই পাসওয়ার্ড নির্ধারণ করতে পারবেন এবং নির্দিষ্ট সময়সীমার পর এটি আবার পরিবর্তনও করতে পারবেন।

তাছাড়া, নগদ একাউন্ট ব্যবহার তথা টাকা আদান-প্রদান বা পরিশোধ করার জন্য আপনাকে একটি সিকিউরিটি পিন দিতে হবে। এই পিন দ্বারা আপনি আপনার একাউন্টের সকল পেমেন্ট সম্পর্কিত কাজ করতে পারবেন। এছাড়া নগদ একাউন্ট ব্যবহার করার সময় প্রতিবার আপনার মোবাইল নম্বরে একটি সিকিউরিটি কোড (অর্থাৎ ওয়ান টাইম পিন) প্রেরিত হবে যা আপনাকে প্রতিবার লেনদেনের সময় ব্যবহার করতে হবে। কিন্তু মনে রাখতে হবে এই ওটিপি এসএমএস কোড, আপনার পিন নম্বর ও পাসওয়ার্ড আপনি ছাড়া অন্য কেউ যেন না জানতে পারে। আপনার নগদ একাইন্টের পিন, পাসওয়ার্ড এবং লেনদেনের সময়ের ওটিপি কোড নিজের কাছেই সুরক্ষিত রাখতে হবে।

নগদ App এ একাউন্ট এর ব্যবহার

সাধারণত মোবাইল এপের মাধ্যমে নগদ একাউন্ট ব্যবহার করা খুবই সহজ। আপনার ফোনের প্লে-স্টোর থেকে আপনি নগদ অ্যাপ ডাউনলোড করে নগদ একাউন্ট খুলতে ও ব্যবহার করতে পারেন। নগদ অ্যাপসটি আপনার মোবাইল নম্বর দিয়ে লগিন বা রেজিস্টার করে ব্যবহার করতে হবে। আপনার নগদ একাউন্টের ড্যাসবোর্ডে প্রবেশ করলে আপনি ব্যালেন্স, টাকা প্রেরণের অপশন, বিভিন্ন সেবা যেমন বিল পরিশোধ এবং কেনাকাটার পেমেন্ট করতে পারবেন। এছাড়া আপনি নগদ একাউন্ট থেকে অন্য নগদ একাউন্ট এবং যেকোনো ব্যাংক একাউন্টে টাকা স্থানান্তর খব সহজেই মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে করতে পারবেন।

নগদ একাউন্টের সুবিধাসমূহ

গ্রাহকদের বিভিন্ন সুবিধাসমূহ প্রদানের জন্য নগদ খুবই জনপ্রিয়। নগদ একাউন্ট ব্যবহার করার সময় আপনি বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা পাবেন। এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় সুবিধাটি হলো মোবাইল রিচার্য এবং অফার সহ বিভিন্ন প্যাকেজ বা বান্ডেল ক্রয়ের সুবিধা। তাছাড়া, শুধুমাত্র নগদেই বিভিন্ন রিচার্জে পেয়ে যাবেন অসাধারণ ক্যাশব্যাক।

আবার, আপনি নগদ একাউন্ট ব্যবহার করে বিভিন্ন ইন্টারনেট সার্ভিস প্রদানকারীর বিল সার্ভিস চার্জ ছাড়াই পরিশোধ করতে পারবেন। আবার, বিল পরিশোধে নগদ নানা ধরনের ক্যাশব্যাক অফারও দিয়ে থাকে। এছাড়াও, নগদ আপনাকে সহজে বিভিন্ন অনলাইন প্লাটফর্মে পণ্য অর্ডার করতেও সাহায্য করে। নিচে নগদ ব্যবহারের কিছু সুবিধাসমূহ দেওয়া হলো।

  • খুব সহজেই দেশের যেকোনো প্রন্তে টাকা লেনদেন করতে পারবেন।
  • যে কোন সময় যেকোনো নম্বরে মোবাইল রিচার্জ করতে পারবেন।
  • বিভিন্ন মোবাইল রিচার্য-এ অনেক অফার পেতে পারেন।
  • অনলাইনে সপিং করে বিল পরিশোধ করতে পারবেন।
  • পল্লি-বিদ্যুৎ সহ অন্যান্য বিল পরিশোধ করতে পারবেন।
  • পৌরসভার বিভিন্ন ধরণের বিল পরিশোধ করতে পারবেন।
  • মোবাইল রিচার্জ, বিল পরিশোধ অথবা বিভিন্ন অনলাইন বা অফলাইনে পেমেন্ট করলে ক্যাশব্যাকও পেতে পারেন।

নিজের মোবাইলে যেভাবে নগদ একাউন্ট খুলবেন

বর্তমানে খুব সহজেই আপনি নিজের মোবাইল থেকে খুব সহজেই একটি নগদ একাউন্ট খুলতে পারবেন। যেকোন অপারেটরের সিম ব্যবহার করে আপনি নগদ একাউন্ট খুলতে পারবেন। আপনার মোবাইলের সিম যেই আইডি কার্ড দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা আছে সেই আইডি কার্ড এর মালিক এর নামে একাউন্ট খোলা হবে। নিজের মোবাইলে নগদ একাউন্ট খুলতে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন।

  • প্রথমে আপনার মোবাইল থেকে *১৬৭# ডায়াল করুন।
  • এরপর আপনার ইচ্ছামতো ৪ সংখ্যার একটি পাসওয়ার্ড সেট করুন।
  • আপনার প্রদানকৃত পিন নম্বর/পাসওয়ার্ড আবার দিন।
  • আপনার একাউন্ট সফলভাবে খোলা হয়েছে।

নগদে ক্যাশ আউট চার্জ

নগদ একাউন্ট এর মাধ্যমে আপনি সবচেয়ে কম চার্জে ক্যাশ আউট করতে পারবেন। দৈনিক কোনো লিমিট ছাড়াই যেকোন সময়ে আপনি আপনার প্রয়োজনে ক্যাশ আউট করতে পারবেন। তবে ক্যাশ আউট করার জন্য একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ ফি আপনার একান্ট থেকে কাটা হবে। আপনি যদি নগদ অ্যাপস থেকে ক্যাশ আউট করেন তাহলে প্রতি হাজারে ৯ টাকা ৯৯ পয়সা ক্যাশ আউট ফি দিতে হবে। আর আপনি যদি মোবাইলে ইউএসএসডি ডায়ালের মাধ্যমে ক্যাশ আউট করেন তাহলে প্রতি হাজারে ১২ টাকা ৯৯ পয়সা লাগবে।

নগদ একাউন্টে টাকা দেখার নিয়ম

মনে করুন আপনার একটি নগদ একাউন্ট রয়েছে। আপনার নগদ একাউন্টে কত টাকা রয়েছে তা আপনার দেখতে হতে পারে। যদি আপনি Nagad App ব্যবহার করেন তাহলে অ্যাপ অন করলেই ব্যালেন্স সহ সকল তথ্য দেখতে পারবেন। তাছাড়া, অ্যাপ ছাড়া আপনার নগদ একাউন্টের টাকা দেখতে হলে আপনাকে যা করতে হবে তা হলো:

  • প্রথমে আপনার মোবাইল থেকে *১৬৭# ডায়াল করুন।
  • এরপর ৭ নম্বর অপশন MY Nagad এ প্রবেশ করুন।
  • এরপর ১ নম্বর অপশনে প্রবেশ করুন।
  • আপনার পিন নম্বর প্রদান করে একাউন্ট ব্যালেন্স চেক করুন।

এছাড়াও আপনি নগদ অ্যাপস ব্যাবহার করলে খুব সহজেই ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন। প্রথমে নগদ অ্যাপসে ঢুকতে হবে। অ্যাপটি ওপেন করলে ওপরে চেক ব্যালেন্স এর অপশনে ক্লিক করলেই আপনার একাউন্ট এর ব্যানলন্স দেখতে পারেন।

উপসংহার

বিশ্বের সকল দেশের মতো বাংলাদেশ ও প্রযুক্তি নির্ভর দেশ। বাংলাদেশ প্রযুক্তির দিক থেকে গত কয়েক বছরের থেকে অনেক এগিয়ে গিয়েছে। বর্তমানে বাংলাদেশে অনেক ধরণের মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম রয়েছে। এর মধ্যে নগদ একটি জনপ্রিয় মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম। অনেক ব্যাবহারকারী নগদ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চায়। তাই এই আর্টিকেলের মধ্যে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

Leave a Comment